জীবন তো চলতে থাকে, থেমে থাকার সময়তো জীবনের কাছে নেই। জীবনে পথ চলবার সময় কত বাধা আর বিপত্তি আসে তারপরও সে চলতে থাকে কিন্তু আমরা থেমে যাই। কল্পনা করা যাক একটি সিঁড়ির কথা যেটা বেয়ে উঠবার চেষ্টা করছি অসংখ্যবার কিন্তু দেখা গেল কিছু একটা ধেয়ে আসছে তাই ভয়ে নেমে গেলাম, আবার চেষ্টা করলাম উঠার এবার দেখলাম উঠবার আর সিঁড়ি নেই আবারও নেমে গেলাম, আবার উঠলাম এবার কেও ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিল এবার আর নিজেক নামতে হল না। জীবনটাও এমন ভাবেই চলতে থাকে।


তাই বলে থেমে থাকার মানুষ যে নয় সে চলতে থাকে আর কেও পিছিয়ে পরে অনেক কদম পিছনে। রবিন্দ্রানাথের কবিতার একটি লাইন মনে পরে গেল- “সময় কোথায় সময় নষ্ট করবার”। বাস্তবতাও তাই, সময় নষ্ট করবার সময় কখনই জীবনকে দেয়া উচিৎ নয়। আজ যা হয়েছে তা কালকের জন্য উঠিয়ে রেখে লাভ কি! বাস্তবিক পক্ষে নেই। সময় বরই সার্থপর তাই সময় নষ্ট না করে লেগে পরা উচিৎ এক অনির্বাণ সংগ্রামে। জয়ী তো হতেই হবেই, জয়ী সবাই হতেই চায়। 


অতীতের কথা মনে করে আজকের সময় যে নষ্ট করে সে তো বর্তমানের উপযোগী নয় আবার ভবিষ্যতে করব বলে যে বর্তমানের কাজ ফেলে রাখে সে হয়তো অতীতেরই উপযোগী। অনেক জ্ঞানী ব্যাক্তি বলে গেছেন যে “ভবিষ্যতের ভাবনা ভাবাই বুদ্ধি মানের কাজ” কিন্তু ভবিষ্যতের কথা ভেবে বর্তমানের কোন চ্যালেঞ্জ না নেয়া খুব একটা যৌক্তিক নয়। সব সময় নিজেকে শোনা উচিৎ। কোন কিছু ঘটবার আগে নিজের কথা ভাবুন কারন যতক্ষণ আপনি ভালো আছেন ততক্ষণ আপনার সাথের মানুষেরাও ভালো আছে। আর আপনি নিজের জন্য কিছু না করলে আপনার চারিপাশের মানুষগুলোর জন্যও তো কিছু করতে পারবেন না। তাই অন্যর কথা ভাববার আগে নিজের জন্য একবার ভেবে নিন। 


জীবন অনেক সুন্দর, আপনার সবটাকে দিয়ে সাজিয়ে নিন।  

Advertisements